ব্যাংকক : কাজ করতে করতে ক্লান্ত হয়ে ঘুমিয়ে পড়ার ঘটনা নতুন কিছু নয়। তবে চুরি করতে এসে ঘরের মধ্যেই এসি চালিয়ে ঘুমিয়ে পড়েছে চোর-এমন ঘটনাও আজকাল ঘটেছে।

এ যেন ঠিক সিংহের গুহায় ডাকাতি করতে এসে ঘুমিয়ে পড়া। খোদ পুলিশের বাড়ি ডাকাতি করত এসে দিব্যি এসি চালিয়ে ঘুমিয়ে পড়লেন চোরবাবাজী৷ তারপর যা হল শুনলে চোখ কপালে ওঠার যোগার।

জানা গিয়েছে, থাইল্যান্ডের এক পুলিশ অফিসারের বাড়িতে শুক্রবার গভীর রাতে চুরি করার মতলবে ঢোকে বছর বাইশের এক চোর। কিন্তু সে যে চুরি করতে এসেছিল সে কথা বেমালুম ভুলে গিয়ে দিব্যি এসি চালিয়ে সটান ঘুমিয়ে পড়ে পুলিশ অফিসারের বাড়ির নরম বিছানায়।

ভেবেছিল হালকা একটু ঘুমিয়ে নিয়ে মালপত্র নিয়ে চম্পট দেবে। কিন্তু কোথায় কী! এসির ঠান্ডা হাওয়ায় গৃহস্থের বিছানায় শুয়ে নাক ডেকে গোটা রাত কাবার করে দেয় চোর। বিশ্রামের চোটে চুরি করার কথা ভুলে গিয়ে নিশ্চিন্তে ঘুমিয়ে পড়ে চোরবাবাজী। তারপর যা হল তা বলাই বাহুল্য।

পরদিন সকালে গৃহস্থের কাছেই ধরা! খোদ পুলিশ অফিসার ওই গৃহস্থ পরদিন তাকে ঘুম থেকে ডেকে শ্রীঘরে নিয়ে যান সেই চোরকে।

জানা গিয়েছে, বেঘোরে ঘুমের চোটে কখন সকাল হয়ে গিয়েছে তা গুনাক্ষরেও টের পায়নি ওই চোর। যারফলে সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে মেয়ের ঘরে এসি চালানো দেখে সন্দেহ হয় ওই পুলিশ অফিসারের। মেয়ে বাড়ি না থাকায় কীভাবে এসি অন হল তা ভেবে কিছুটা অবাক হন তিনি৷ এরপর মেয়ের ঘরে ঢুকতেই চোখ কপালে ওঠার যোগার ওই পুলিশের। ঘরে ঢুকতেই তিনি দেখেন খোদ চোরবাবাজী কম্বল মুড়ি দিয়ে দিব্যি নাক ডেকে ঘুমোচ্ছেন। শত ডাকেও ঘুম ভাঙানো যাচ্ছিলো না সেই চোরের।

অতঃপর অনেক ডাকাডাকির পর চোরের ঘুম ভাঙলে প্রথমে কিছুটা ঘাবড়ে যায় সে। তারপর ব্যাপারটা বুঝে উঠতেই হাতকড়া পরিয়ে শ্রীঘরে নিয়ে যান ওই পুলিশ অফিসার।

By BD News