ভেঙে দেওয়া হচ্ছে চট্টগ্রাম মহানগর ও উত্তর জেলা বিএনপির সব থানা, উপজেলা এবং ওয়ার্ড কমিটি। দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতার বাইরে থাকা দলটি মূলত নেতা-কর্মীদের নতুনভাবে উজ্জীবিত করতে নিয়েছে এ কৌশল। দলটির শীর্ষ নেতাদের ধারণা, নতুন কৌশলে উজ্জীবিত হয়ে বিএনপি ফিরে পাবে হারানো যৌবন। চট্টগ্রাম উত্তর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক গোলাম আকবর খোন্দকার বলেন, ‘কেন্দ্রের নির্দেশে উপজেলা এবং পৌর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হবে শিগগিরই। গঠিত আহ্বায়ক কমিটি সবার সঙ্গে সমন্বয় করে ৬০ কর্ম দিবসের মধ্যে সম্মেলন করে উপজেলা ও পৌর কমিটি গঠন করবে।’ চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, ‘আগামী ১২ ফেব্রুয়ারির সমাবেশের পর থানা এবং ওয়ার্ড বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠন প্রক্রিয়া শুরু হবে। এর মধ্যে কমিটি গঠনের হোম ওয়ার্ক চলছে।’

জানা যায়, চসিক নির্বাচনের ভূমিধস পরাজয়ের পর চট্টগ্রামের বিএনপিকে চাঙা করতে উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্র। এরই মধ্যে গত ২ ফেব্রুয়ারি মহানগর ও উত্তর জেলা বিএনপির শীর্ষ নেতাদের নিয়ে ঢাকায় বসেছেন দলের শীর্ষ নেতারা। ওই বৈঠকে দল চাঙা করতে চট্টগ্রাম মহানগর ও উত্তর জেলা বিএনপির কমিটি গঠনের নির্দেশনা দেওয়া হয়। একই সঙ্গে বিগত সময়ে সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থীদের নেতৃত্বে ছয় মহানগরে সমাবেশ করার নির্দেশনা দেওয়া হয়। ওই নির্দেশনার অংশ হিসেবে আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সামবেশ অনুষ্ঠিত হবে। এরপর নির্বাচনে এমন ভূমিধস পরাজয়ে মনোবল ভেঙে পড়া নেতা-কর্মীদের উজ্জীবিত করতে চট্টগ্রাম মহানগরের বিভিন্নœ থানা, ওয়ার্ড এবং ইউনিট কমিটি গঠনের প্রক্রিয়ার শুরু করতে যাচ্ছে বিএনপি। আহ্বায়ক কমিটি গঠনের আগে বিএনপি ১৫ থানা ও ৪৩ ওয়ার্ড ভেঙে দেওয়া হবে। দীর্ঘদিন ঝিমিয়ে থাকা চট্টগ্রাম উত্তর জেলা বিএনপির কার্যক্রম চাঙা করতে সাত উপজেলা ও নয় পৌরসভার আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হচ্ছে। কমিটির আহ্বায়ক ও সদস্য সচিবরা মিলে দ্রুত সময়ের মধ্যে ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ড কমিটি গঠনের উদ্যোগ নেবেন। ৪৫ থেকে ৬০ কর্মদিবসের মধ্যে ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ড কমিটি গঠনের পর সম্মেলনের মাধ্যমে তারা উপজেলা এবং পৌর কমিটি ঘোষণা করবে। পৌর ও উপজেলা আহ্বায়ক কমিটি গঠনের আগে বিলুপ্ত করা হবে সংশ্লিষ্ট ইউনিট কমিটিগুলো। মহানগর বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও আহ্বায়ক কমিটির সদস্য কামরুল ইসলাম বলেন, ‘এরই মধ্যে মহানগর বিএনপির থানা এবং ওয়ার্ড কমিটি গঠনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আহ্বায়ক কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া নির্ধারণ করতে শিগগিরই বসছেন মহানগরের শীর্ষ নেতারা।’

চট্টগ্রামে যুবদলের পাঁচ থানায় নতুন আহ্বায়ক কমিটি : চট্টগ্রাম মহানগর যুবদলের পাঁচ থানার আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল বিকালে যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে কমিটি ঘোষণা করা হয়। এতে সদরঘাট থানা কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে নুর খানকে, ইপিজেড থানার নুরুদ্দিন শরীফ দিদার, পতেঙ্গার আহ্বায়ক খোরশেদ আলম, বন্দর থানার শফিউল আজম এবং আকবর শাহ থানার আহ্বায়ক করা হয়েছে গিয়াস উদ্দিনকে। আহ্বায়ক কমিটির সত্যতা স্বীকার করেছেন মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সাহেদ।

উৎসঃ বিডি-প্রতিদিন

By BD News